এই কার্ড না থাকলে আর কোনো সরকারি কাজ করতে পারবেন না! আপনার কাছে আছে তো?

১/১০: কেন্দ্রীয় সরকার এবার জন্ম সার্টিফিকেটকে (Birth Certificate) অনেক ক্ষেত্রেই বাধ্যতামূলক করতে চলেছে। কেন্দ্রীয় সরকার স্কুলে ভর্তি, ভোটার লিস্টে নাম নথিভুক্তকরণ, সরকারি চাকরি, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট বানানোসহ অন্যান্য ক্ষেত্রেও জন্ম সার্টিফিকেট দেখানো বিল আনতে চলেছে। আগামী শীতকালীন অধিবেশনেই এই বিল সংসদে পেশ করা হবে হবে বলে সূত্র মারফত খবর পাওয়া গেছে।

২/১০: প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রযুক্তি হতো উন্নত হচ্ছে সরকারি কাজও ততটাই আধুনিকভাবে করা হচ্ছে। বেশিরভাগ সরকারি কাজের ক্ষেত্রেই দেশের প্রত্যেকটি নাগরিককে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র দেখাতে হচ্ছে। ফলত বিভিন্ন প্রতারণা চক্র, এমনকি ভুয়ো নাগরিকদের ধরাও সহজতর হচ্ছে।

৩/১০: পূর্বেও জন্ম মৃত্যু বিষয়ে ১৯৬৯ সালে Registration of Birth & Death (RBD) Act নামে একটি আইন চালু করা হয়েছিলো। সেই আইনে জন্ম মৃত্যুর রেজিস্ট্রেশন করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। কিন্তু সেইভাবে তা কার্যকর হয়নি। এবার সেই আইনকেই সংশোধিত করে আরও দৃঢ়ভাবে কার্যকরী করছে মোদী সরকার।

🔥 আরও পড়ুন: 👇👇👇

🔥 Aadhaar Card: আপনার কাছে যে আধার কার্ড রয়েছে, সেটি জাল নয় তো? কিভাবে বুঝবেন?

🔥 Aadhaar Card: আপনার আধার কার্ড থাকলে এটি আপনাকে অবশ্যই করতে হবে, নইলে বিপদ!

🔥 প্রাথমিকের মেধাতালিকায় নম্বরে বেনিয়ম নিয়ে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এলো!

৪/১০: নতুন আইনানুযায়ী, হাসপাতাল, নার্সিংহোম এবং প্রত্যেকটি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানকে তাদের কাছে থাকা সমস্ত ডেথ সার্টিফিকেট মৃত্যুর কারনসহ সরকারকে দেখাতে হতে পারে। এতে সরকারের দেশের নাগরিকদের জন্ম মৃত্যু সংক্রান্ত পরিসংখ্যান আপডেট করতে সুবিধা হবে।

৫/১০: মৃত ভোটার শনাক্তকরণে সরকারের একটা বড়ো সমস্যা হতো। কোনো মানুষের মৃত্যু হলেও অনেক সময় তার পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হতো না। তাই সরকারের খাতায় সেই মৃত ব্যক্তি জীবিত হয়ে থাকতো। আর অনেকেই অসাধুভাবে সেইসব মৃত নাগরিকদের সমস্ত সরকারি সুযোগ-সুবিধা উপভোগ করত। বিশেষজ্ঞ মহল মনে করছেন যে, এই নতুন বিল চালু করলে এই সমস্যাও অনেকটা দূর হতে পারে।

৬/১০: এই বিল আনার ফলে দেশের কোনো নাগরিকের যখন ১৮ বছর বয়স হবে তখন তার নাম নিজে থেকেই দেশের ভোটার তালিকায় নথিভুক্ত হয়ে যাবে। এছাড়াও মৃত্যুর পর কম্পিউটার ব্যবস্থার মাধ্যমে সেও নিজে থেকেই ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়ে যাবে।

৭/১০: এই বিলের খসড়া তৈরী করা হয়েছিলো গতবছর। এই বিল সম্পর্কে সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন রাজ্য সরকারের মতামতও গ্রহণ করা হয়েছিল। ইউনিয়ন ক্যাবিনেটের সম্মতি পেলে এই বিল সংসদে পেশ করা হবে। নতুন এই সংশোধনী বিল কার্যকরী হলে কেন্দ্রীয় সরকারের NPR (ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্টার)-এর ডাটা জোগাড় করা সহজতর হবে বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

৮/১০: সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের মতে ভারতবর্ষে জন্ম রেজিস্ট্রেশন করার হার ২০১০ সালের ৮২ %-এর তুলনায় ২০১৯ সালে ৯২.৭%-এ দাঁড়িয়েছে। মৃত্যুহারও ২০১০ সালের ৬৬.৯%-এর তুলনায় ২০১৯ সালে ৯২%-এ দাঁড়িয়েছে। এই পরিসংখ্যানকে কেন্দ্রীয় সরকার আরও উন্নত করতে চলেছে।

If you don't have a birth certificate you can't do any government work

৯/১০: পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশসহ প্রায় ১০ টি রাজ্য ইতিমধ্যেই CSR-এর মাধ্যমে জন্ম মৃত্যুর ঘটনা রেজিস্টার করছে। বাকি রাজ্যগুলোর জন্ম মৃত্যুর হার নথিভুক্ত করার জন্য নিজস্ব সিস্টেম রয়েছে। নতুন সংশোধনী বিল আসার পর সমস্ত রাজ্যের ডাটাবেসের সঙ্গে কেন্দ্রীয় ডাটাবেসের সমন্বয় সাধন করা হবে। এবার এই নতুন বিলটি কবে সংসদে পেশ করা হবে সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।

১০/১০: নিবন্ধটি ভাল লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। এছাড়াও বিভিন্ন চাকরি, সরকারি প্রকল্প, শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য সবার আগে জানার জন্য আমাদের Sarkari Jagat-এর ওয়েবসাইটে নিয়মিত প্রবেশ করুন এবং আমাদের WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হন, সেখানে নিয়মিত আপডেট দেওয়া হয়।উপরোক্ত লিঙ্কে ক্লিক করেই যুক্ত হতে পারেন এছাড়াও যুক্ত হওয়ার লিঙ্ক নিবন্ধের শেষে দেওয়া হয়েছে। নিচে সরাসরি প্রাইমারী টেট অ্যাডমিট কার্ড- ডাউনলোডের এর লিঙ্ক দেওয়া হলো-👇👇👇

Important Links (গুরুত্বপূর্ণ লিঙ্কসমুহ)

🔥 আমাদের WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হন👉🔥 যুক্ত হন

 🔥 আরও চাকরি, প্রকল্প ও লেটেস্ট আপডেট দেখুন 👇👇👇

🔥 Eastern Railway Recruitment 2022

🔥 WB TET Admit Card 2022 Download

🔥 WB Primary TET 2022: টেট পরীক্ষার দিন এই সব নির্দেশ না মানলে পরীক্ষা দিতে পারবেন না! কি কি নির্দেশ? দেখে নিন

🔥 Taruner Swapna Scheme 2022

Leave a Comment